বাগেরহাট

রামপালে লকডাউন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষনে উপজেলা প্রশাসন, মাস্ক বিতরন

  • 13
    Shares

সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক গত সোমবার থেকে সারাদেশে টানা এক সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষনা করা হয়েছে। বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় লকডাউন কার্যকর করতে প্রথম দিন থেকেই মাঠে ছিল উপজেলা প্রশাসন।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কবীর হোসেন উপজেলার গিলাতলা, চাকশ্রী বাজার, ফয়লাহাট সহ বিভিন্ন এলাকায় জনসাধারনের মাঝে মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ করেছেন। এদিন এসিল্যান্ড শোভন সরকার সহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ তার সাথে ছিলেন।

লকডাউনের প্রথম দিন অর্থাৎ সোমবার সকাল ৬টা থেকে লকডাউনের কার্যক্রম শুরু হলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে উপজেলার ব্যাস্ততম খুলনা-মোংলা মহাসড়কে দুরপাল্লার যানবাহন ও গণপরিবহন না থাকলেও অটোরিকশা, টমটম, মাইক্রোবাস, মালবাহী ট্রাক, ছোট ট্রাক, মোটরসাইকেল, রিকশা ও ব্যক্তিগত যানবাহন আগের মতোই চলাচল করেছে। অনেক যাত্রী অভিযোগ করে বলেছেন, রাতা-রাতি এসব যানবাহন তাদের ভাড়ার পরিমান বাড়িয়ে দিয়েছে। এতে চরম বিপত্তির মুখে পড়েছেন নিত্য অফিস যাত্রীরা। নিত্যপ্রয়োজনীয় ও জরুরী ছাড়া সব দোকানপাটই বন্ধ রয়েছে। হাটে বাজারে ক্রেতাদের ভীড় একদম চোখে পড়েনি। গত ২৪ ঘন্টায় উপজেলায় করোনা সংক্রমিত হবার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কবীর হোসেন জানান, করোনা মহামারির ভয়াবহতা সম্পর্কে সচেতন করতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমরা জনগনকে সবসময় সার্বিক নির্দেশনা দিচ্ছি। এ সময় তিনি সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে ও লকডাউনে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের না হতে নির্দেশনা দেন।


  • 13
    Shares