নারায়ণগঞ্জ

ইটভাটায় জমির টপসয়েল বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান,২ জনকে কারাদণ্ড


ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইনকে তোয়াক্কা না করে দিনের পর দিন অবৈধভাবে ফসলি জমির টপসয়েল কেটে ইটভাটায় ব্যবহার করছে ভাটা মালিকসহ একটি দালাল চক্র।উর্বর মাটি ইটভাটায় চলে যাওয়া ফসলি জমির সর্বনাশে ফসল উৎপাদন কমছে।

এছাড়াও পাশের জমির মালিকদের ফসলি জমি ভাঙ্গনের মুখে পড়ছে।শুধু তাই নয়, ভয়াবহ বিপর্যয়ের সম্মুখীন হচ্ছে পরিবেশ।পাশাপাশি মাটি পরিবহন ট্রলি ও ট্রাকগুলো যেনতেন ভাবে মাটি ভর্তি করে ইউপির পাকা রাস্তাগুলোতে চলাচল করায় মাটি পড়ে রাস্তার ভিটুমিন নষ্ট হচ্ছে।ভারী যানবাহন চলাচলের কারনে নতুন পাকা সড়ক বছর যেতে না যেতেই নষ্ট হয়ে যাওয়ায় জনগন যেমন দূর্ভোগের শিকার হচ্ছে, তেমনি সরকারেরও অতিরিক্ত অর্থ খরচ হচ্ছে।

জানা যায়, ইটভাটার দালালরা মূলত কৃষকদের বিভিন্নভাবে ফুঁসলিয়ে বা বুঝিয়ে জমির মাটি স্বল্প মূল্যে খরিদ করে তা ইটভাটায় ব্যাবহার করছে।অবৈধ ইটভাটাগুলোর কারনে বিলুপ্ত হচ্ছে শত শত ফসলি জমি।ফলে নষ্ট হচ্ছে ধানক্ষেত।দিনে দিনে ধান রোপনের আগ্রহ হারাচ্ছে কৃষক।কারন ফসলি জমিগুলো বলতে গেলে ডোবায় পরিনত হচ্ছে।

এতদিন স্থানীয় লোকজন প্রতিবাদ জানালেও এতে কর্নপাত করেনি ইটভাটা মালিকসহ দালাল চক্র।দীর্ঘদিন ধরে নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের পেরাবো নামক স্থানে ইট ভাটায় ব্যবহারের উদ্দেশ্যে অনেক ফসলি কৃষি জমি থেকে মাটি কেটে আসছিলো এ চক্রটি।ঘটনাক্রমে বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসার পর শনিবার(২২মে) ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) গোলাম মুস্তাফা মুন্না।

এ সময় ফসলি জমি কেটে ইট ভাটায় ব্যবহারের অপরাধে দুই জনকে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ এর ১৫ {১} (ক) ধারায় ৭ দিন করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।এছাড়াও এ সময় একটি ড্রাম ট্রাকসহ মোট তিনটি ড্রাম ট্রাকের কাগজপত্র জব্দ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আতিকুল ইসলাম বলেন,ফসলি জমি কাটা বন্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।


Promote your Company or BusinessAdvertise with us

আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসায়ের প্রচার বা প্রসার করতে চান? দেশের জনপ্রিয় অনলাইন সংবাদ মাধ্যম ডেইজ বুলেটিন আপনার সেবায় নিয়োজিত। লক্ষ লক্ষ পাঠকের কাছে আপনার বিজ্ঞাপনটি পৌঁছে যাবে মুহূর্তেই।