ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে নদী ভাঙ্গনের মুখে শতশত পরিবার


শীতেও ভাঙছে গড়াইয়ের ঝিনাইদহ উপকূল। প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকায় এ ভাঙনে দিশেহারা নদী পাড়ের শতশত পরিবার। দৃশ্যমান এ ভাঙনে হারিয়ে যাচ্ছে ঝিনাইদহের শৈলকুপার ৩টি ইউনিয়নের নদীপাড়ের
বসতবাড়ি, চাষযোগ্য জমি, বাগানসহ ধর্মীয় উপাসনালয়।

সরেজমিনে শৈলকুপা উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়নের পূর্ব ও পশ্চিম মাদলা, খুলুমবাড়িয়া, জালশুকা, নলখুলা, সুবির্দাহ গোবিন্দপুর, কাশিনাথপুর, সারুটিয়া ইউনিয়নের বড়ুরিয়া থেকে কৃষ্ণনগর ও ধলহরাচন্দ্র ইউনিয়নের কাশিনাথপুর, মাজদিয়া, উলুবাড়িয়া ও লাঙ্গলবাঁধ বাজারে এ ভাঙন দেখা যায়। কোথাও ছোট আকারে আবার কোথাও বড় আকারে এ ভাঙন চলছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। ক্ষণে ক্ষণে পাল্টে
যাচ্ছে এ ৩ ইউনিয়নের চিত্র। ভিটেহারা হয়ে দিশেহারা পরিবারগুলো অন্যত্র সরে যেতে বাধ্য হচ্ছে।

বড়ুরিয়া গ্রামের লিমন জানান, চোখের সামনেই স্বপ্ন ধূলিসাৎ হয়ে যাচ্ছে। কিছুই করার থাকছে না। পূর্ব মাদলা
গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল গণি বলেন, আমরা খুবই আতঙ্কের মধ্যে দিন ও রাত পার করছি।

সব হারানো পশ্চিম মাদলা খুলুমবাড়িয়া গ্রামের হাসিনা বেগম বলেন, নদীগর্ভে সব হারিয়ে এখন আমরা পুরোপুরি নিঃস্ব।

হাকিমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান জিকু জানান, এখনই ব্যবস্থা না নিলে আর কিছুদিন পর কিছুই করার থাকবে না। মানুষের এ কষ্ট চোখে দেখা যায় না। পাল্টে যাচ্ছে উপজেলার মানচিত্র।

শৈলকুপা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা লিজা বলেন, বিষয়টি নিয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।