নারায়ণগঞ্জ

৪০ গ্রামের মানুষের কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন বাস্তবায়ন


স্বাধীনতার পর ৪০ গ্রামের মানুষে যে স্বপ্নকে নিছক স্বপ্ন হিসেবে লালন করতেন, সে স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিয়ে উন্নয়নের এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত করলেন নারায়ণগঞ্জ -৩ (সোনারগাঁ) আসনের সাংসদ ও জাতীয় পার্টির ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত মহাসচিব জননেতা লিয়াকত হোসেন খোকা।

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২ তম জন্ম দিন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের হরিহরদী ব্রীজের শুভ উদ্বোধনের মাধ্যমে উন্নয়নের এ নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেন সাংসদ খোকা।

অবশেষে সোনারগাঁ উপজেলাকে বদলে দেওয়ার মহানায়ক, দুইবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার হাত দিয়েই উদ্বোধন হলো সোনারগাঁয়ের ৩টি ইউনিয়নের ৪০ গ্রামের হাজার হাজার মানুষের দীর্ঘ প্রতিক্ষিত স্বপ্নের হরিহরদি সেতু। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২ তম জন্মদিনে সোনারগাঁ বাসীর উপহার হিসাবে ইতিহাসে লিখা থাকবে এই সেতুর নাম। সনমান্দি ইউনিয়নের হরিহরদি বাজারের পাশ থেকে ব্রহ্মপুত্র নদীর উপর দিয়ে জামপুর ইউনিয়নের মুছারচর এলাকাকে যুক্ত করেছে এই ব্রীজ।এখন থেকে এই ব্রীজ দিয়ে বারদি ইউনিয়নের লোকজনও যাতায়াত করবে।উল্লেখ্য, ৬ কোটি ৬৭ লক্ষ ৯৯ হাজার টাকা ব্যয়ে ৯৯ মিটার দৈর্ঘ্যের এই ব্রীজটি স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের(এলজিইডি) আইআরআইডিপি-২ প্রকল্পের মাধ্যমে ব্রীজের কাজটি ২০১৮ সালের ৫ই মে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা ও জনপ্রতিনিধি বৃন্দ। ব্রীজের এপ্রোচ রোড হতে কানেকটিং রোডে সংযোগ স্থাপন করতে উপজেলা প্রশাসন আরও ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করে। এই ব্রীজ নির্মাণের ফলে এশিয়ান হাইওয়ে যানজটে পড়া লোকজন বারদি হয়ে অথবা বাংলা বাজার দড়িকান্দি হয়ে উপজেলা সদরে পৌছতে পারবে। ব্রীজ উদ্বোধনের সংবাদে পুরো এলাকা জুড়ে এক উৎসবমুখর পরিবেশ তৈরি হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ব্রীজের উদ্বোধন করেন জননেতা সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূইয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জননেতা লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, উন্নয়নের ক্ষেত্রে কোন রাজনীতি চলবে না। আগামীতে উপজেলার প্রতিটি এলাকায় কোন কাঁচা রাস্তা থাকবে না বলে এ সময় তিনি উল্লেখ করেন।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বাবুল ওমর,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার, সনমান্দি ইউনিয়ন পরিষদের দুই দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান জিন্নাহ, জামপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হুমায়ন কবির ভূইয়া, উপজেলা প্রকৌশলী আরজুরুল হক, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম ইকবাল, পৌরসভা জাতীয় পার্টির সভাপতি এম এ জামান, নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা দেওয়ান উদ্দিন চুন্নু, বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন বাবুল, বৈদ্যের বাজার ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি মোহাম্মদ আলীসহ মহাজোট নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় গন্য মান্য নেতৃবৃন্দ।